― Advertisement ―

spot_img

১৮৯২ সালে কাউন্সিল আইনের ধারাসমূহ উল্লেখ কর।

ভূমিকা : ১৮৯২ সালের ভারতীয় কাউন্সিল আইনের দ্বারা জাতীয়দের দাবিদাওয়ার একটা বিশেষ দিক বাস্তবায়নের অগ্রগতি সাধন হয়। ভারতীয় উপমহাদেশের শাসনতান্ত্রিক ক্রমবিকাশের ধারায় ১৮৯২ সালের...
Homeঔপনিবেশিক শাসক১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের যেকোনো তিনটি ধারা লিখ ।

১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের যেকোনো তিনটি ধারা লিখ ।

ভূমিকা : ব্রিটিশ শাসনাধীনে ভারতের ইতিহাসে ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইন ছিল একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা। ১৯১৯ সালের ভারত শাসন আইনের ব্যর্থতার প্রেক্ষিতে ও ভারতীয়দের দাবি-দাওয়া ও শাসনতান্ত্রিক জটিলতার পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইন প্রবর্তন করা হয়। এ আইন ভারতীয় নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ১৯৩৫ সালের ২৪ জুলাই পাস করা হয়। এ আইনের গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলো যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার পদ্ধতি ও প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন ।

— ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের বৈশিষ্ট্যসমূহ : ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের বৈশিষ্ট্যসমূহ আলোচনা করা হলো :

১. যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার পদ্ধতি : এ আইনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব। এ আইন প্রণয়নের পূর্বে ভারতীয় শাসনব্যবস্থা ছিল এককেন্দ্রিক। শাসনব্যবস্থাকে গতিশীল করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রদেশগুলোকে একত্র করে যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার গঠনের পরিকল্পনা করা হয় এ আইনের মাধ্যমে ।

২. প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন : ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলো প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন। এ আইনের মাধ্যমে প্রদেশগুলোতে স্বায়ত্তশাসনের ব্যবস্থা করা হয়।

৩. দ্বৈতশাসন প্রবর্তন : ১৯৩৫ সালের ভারত আইনের মাধ্যমে কেন্দ্র দ্বৈতশাসনের ব্যবস্থা হয়। এ আইনের মাধ্যমে প্রদেশসমূহ থেকে দ্বৈতশাসন রহিতকরণ করা হয় ।

৪. দ্বি-কক্ষবিশিষ্ট আইনসভা : ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো দ্বি-কক্ষবিশিষ্ট আইনসভা । আইনসভার উচ্চ কক্ষের নাম রাষ্ট্রীয় সভা ও নিম্ন কক্ষের নাম ব্যবস্থাপক সভা ।

৫. নতুন প্রদেশ : ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইনের মাধ্যমে দুটি নতুন প্রদেশ সৃষ্টি করা হয়। যথা- সিন্ধু ও উড়িষ্যা প্রদেশ। এমনকি এ আইনের মাধ্যমে বার্মাকে ভারত থেকে পৃথক করা হয় ।

উপসংহার : উপরিউক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বলতে পারি যে, সাইমন কমিশন ও গোলটেবিল বৈঠকের আলোচনার আলোকে প্রবর্তিত এ আইনের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার পদ্ধতি ও প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন। ১৯৩৫ সালের ভারত শাসন আইন ভারতীয় শাসনতান্ত্রিক ইতিহাসে এক উল্লেখযোগ্য ঘটনা । যা ভারতবর্ষের শাসনতন্ত্রকে খুবই গতিশীল করে তোলে |