― Advertisement ―

spot_img

রাশিয়া ও সোভিয়েত ইউনিয়নের ইতিহাস (১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত)

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়(ইতিহাস বিভাগ)বিষয় :রাশিয়াও সোভিয়েত ইউনিয়নের ইতিহাস (১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত)বিষয় কোড : 241509 ক-বিভাগ (ক) কাকে মুক্তিদাতা জার' বলা হয়?উত্তর : দ্বিতীয় আলেকজান্ডারকে । (খ) ক্রিমিয়ার যুদ্ধ...
Homeরাশিয়া ও সোভিয়েত ইউনিয়নের ইতিহাসকার্ল মার্কসের পরিচয় দাও!

কার্ল মার্কসের পরিচয় দাও!

ভূমিকা : উনিশ শতকের প্রথমার্ধে যার বৈপ্লবিক সমাজচিন্তা সারা পৃথিবীতে অভূতপূর্ব সাড়া জাগায়, তিনি হলেন কার্ল মার্কস। বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কার্ল মার্কসের অবদান অনেক। তিনি সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে যুগে যুগে স্মরণীয় হয়ে আছে। তিনি শুধু সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের নেতাই ছিলেন না তিনি ছিলেন একজন চিন্তাবিদ, সাংবাদিক, বিপ্লবী নেতা, একজন বিখ্যাত দার্শনিক।

→ কার্ল মার্কসের পরিচয় : নিম্নে কার্ল মার্কসের পরিচয় দেওয়া হলো :
১. জন্ম : কার্ল মার্কস ছিলেন জার্মানির প্রসিদ্ধ ইতিহাস দার্শনিক। তার পুরো নাম কার্ল মার্কস। তিনি ১৮৮১ সালের ৫ মে জন্মগ্রহণ করেন। জন্মস্থান জার্মানির রাইন শহরের ত্রিয়ার শহরে। তার বাবার নাম হাইনরিশ মার্কস মায়ের নাম হেনরিয়েটা নিপ্রেসবুর্গ । তিনি তার পিতামাতার ৯ জন সন্তানের মধ্যে ৩য় ৷

২. শিক্ষাব্যবস্থা : তার প্রাথমিক শিক্ষার পাঠ শুরু হয় ত্রিয়ার শহরের এক স্কুলে। কার্ল মার্কস মাত্র ১৩ বছর বয়স পর্যন্ত বাড়িতেই পড়াশুনা শুরু করেন। বাল্যকালে বাড়িতে লেখাপড়া শেষ করে তিনি ত্রিয়ার জিমনেসিয়ামে ভর্তি হন। ১৭ বছর বয়সে সেখান থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর ইউনিভার্সিটি অব বন-এ আইন বিষয়ে পড়াশুনা শুরু করেন। ইতিহাস ও দর্শনশাস্ত্রে তার অপরিসীম অনুরাগ ছিল। ১৮৪১ সালে তিনি জেনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে. পি.এইচ.ডি. ডিগ্রি লাভ করে পরের বছর দর্শনের অধ্যাপনায় কাজে যোগ দেন ।

৩. কার্ল মার্কসের বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ : কার্ল মার্কস ১৮৪৩ | সালে তিনি জেনিফন ভেস্টফালেনকে বিয়ে করেন। ভেস্টফালেন । ছিল অভিজাত পরিবারের মেয়ে। কিন্তু মার্কসকে বিয়ে করার পরে তিনি সারা জীবন সর্বহারা দার্শনিক মতবাদের সাথে জড়িত হয়ে পড়েন।

৪. সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন ও নির্বাসিত জীবন : ১৮৪৩ সালে তিনি প্যারিসে আসেন। এই সময় ফ্রেডারিক এঙ্গেলসের সাথে দেখা হয়। কার্ল মার্কস এরপর ১৮৪৭ সালে তার মতবাদ প্রদর্শনের জন্য ফ্রান্স থেকে নির্বাসিত হয়ে ব্রাসেলসে আশ্রয় গ্রহণ করেন। ১৮৪৭ সালে মার্কস ও এঙ্গেলস কম্যুনিস্ট লীগে যোগ দেন ।

৫. তাঁর বিখ্যাত গ্রন্থসমূহ : কার্ল মার্কস অনেক বিখ্যাত গ্রন্থ রচনা করেছিলেন। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ১৮৬৭ সালে প্রকাশিত “Das Kapital” এছাড়া অন্যান্য গ্রন্থগুলো হলো “The German ideology, The Economic and Philosophic” ইত্যাদি।

৬. মৃত্যু : ১৮৮৩ সালে নির্বাসিত অবস্থায় তিনি লন্ডনে মৃত্যুবরণ করেন। এর মধ্য দিয়েই তার বিপ্লবী জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটে।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, কার্ল মার্কস বিশ্ব সমাজের ইতিহাসে এক আলোচিত ব্যক্তিত্ব। তিনি আধুনিক সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রবক্তা হয়ে সমাজতন্ত্রকে এক নতুন রূপ দান করেছেন। তিনি সারা জীবন সর্বহারা শ্রমিক মানুষের জন্য সংগ্রাম করেন, প্রকৃতপক্ষে যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। বিশ্ব সমাজ বহুলাংশে তার কাছে ঋণী।